`হানিফ পরিবহনের কাউন্টারে আগুন’ সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৭ আহত ৩০

95
Spread the love

ACসাথী আকতার : ঢাকা মহাসড়কের হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকে হানিফ পরিবহনের একটি বাস ধাক্কা দিলে ওই বাসের ৭ যাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন। সিলেট জেলা পুলিশ, হাইওয়ে পুলিশ ও সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইমার্জেন্সী বিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টায় দিকে ইট বোঝাই ওই ট্রাক (নম্বর-ঢাকা মেট্রো ট-১৬-২৮৫৫) যান্ত্রিক ক্রুটির কারণে মহাসড়কে বিকল হয়ে পড়ে। এ সময় রাস্তায় দাঁড় করিয়েই ট্রাকটি মেরামত করা হচ্ছিল। রাত প্রায় ১০টার দিকে ঘটনাস্থলে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা সিলেটগামী হানিফ পরিবহনের বাসটি (ঢাকা মেট্রো ট- ১৪-৮৩১৯) পেছন দিক থেকে ট্রাকটিকে সজোরে ধাক্কা দিলে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। এ সময় যাত্রীবাহী বাসটি দ্বিখন্ডিত হয়ে যায়। এতে বাসের সুপারভাইজার ও হেলপারসহ তিনজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। এর মধ্যে আরো অন্ততঃ ৩০জনকে বিভিন্ন হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি ও চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ ঘটনার পর মহাসড়কে প্রায় ২ ঘন্টা যাচলাচল বন্ধ ছিল। খবর পেয়ে শেরপুর হাইওয়ে পুলিশ, নবীগঞ্জ থানা পুলিশ ও দমকল বাহিনীর সদস্যরা স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় নিহত ও আহতদের উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেন। নিহতদের মধ্যে ৬ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে তারা হলেন,সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক মোস্তাক আহমদ পলাশের ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী সোহাদা বেগম (৪০), তার ছেলে মেহেদী, জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্টের সৈনিক আবু সালেহ হাওলাদার, হানিফ পরিবহনের সুপারভাইজার মহসিন ওরফে টিপু (৪০) ও হেলপার তরিকুল (৩৫) এবং নোভার্টিস ফার্মাসিউটিক্যালসের বিক্রয় প্রতিনিধি আরিফ আজাদ। নিহত অপর একজনের পরিচয় জানা যায়নি। নিহতদের মধ্যে তিনজন ঘটনাস্থলে, একজন মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে এবং তিনজন ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। আহতদের মধ্যে রয়েছেন,আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তাক আহমদ পলাশ, তার ছেলে মোনায়েম ও কন্যা মীম, যাত্রী তপন (১০) ও নূর হোসেন (৪০)। তাদেরকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। খবর পেয়ে রাতে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মী ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল চত্বরে ভিড় করেন। এদিকে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার কদমতলীতে হানিফ পরিবহনের কাউন্টারে রাত ২টার দিকে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে বিক্ষুব্ধ জনতা। হবিগঞ্জ নবীগঞ্জের আউশকান্দিতে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জনের মৃত্যুতে উত্তেজিত জনতা এ আগুন ধরিয়ে দেয় বলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। ফায়ার সার্ভিস সিলেটের সিনিয়র স্টেশন অফিসার জাবেদ হোসেন মোঃ তারেক জানান, রাত ২টার দিকে এ আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটে। এতে কদমতলীতে হানিফ পরিবহনের কাউন্টার এবং যাত্রী পরিবহনের জন্য দুটি লেগুনা ক্ষতিগ্রস্ত হয়। খবর পেয়ে সিলেট নগরী থেকে দুটি এবং দক্ষিণ সুরমা থেকে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট এসে আগুন নিয়ন্ত্রণ করে।


Spread the love