‘হার্ডিঞ্জ ব্রিজ দিয়ে আরও ২৫ বছর নির্বিঘ্নে ট্রেন চলাচল করতে পারবে’

99
Spread the love

image_2067_261280পাবনা প্রতিনিধি : বৃটিশ স্থাপত্যশৈলীর অনন্য নিদর্শণ শতবর্ষী পাবনার পাকশী হার্ডিঞ্জ ব্রিজ দিয়ে আরও অন্তত ২৫ বছর নির্বিঘ্নে ট্রেন চলাচল করতে পারবে বলে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তারা বলেন, সেতুটির নির্মাণ ইতিহাস নিয়ে উচ্চ পর্যায়ের প্রকৌশলী জরিপ কাজ শুরু হয়েছে। জরিপের পর নিশ্চিত হওয়া যাবে নতুন করে সেতু নির্মাণ করা হবে কিনা।
গতকাল রোববার দুপুরে পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ের রেস্টহাউজ মিলনায়তনে এক মতবিনিময় সভায় সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট)’র ও বাংলাদেশ রেলওয়ের প্রকৌশলীরা।
সভায় প্রকৌশলীরা বলেন, দেশের যোগাযোগ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখছে হার্ডিঞ্জ ব্রিজ। ব্রিজটিকে কিভাবে আরও টিকিয়ে রেখে ব্যবহার করা যায় সেসব বিষয় নিয়েও পরীক্ষা নীরিক্ষা ও জরিপ কাজ চলছে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে প্রকৌশলীরা বলেন, হার্ডিঞ্জ ব্রিজ যেভাবে নির্মাণ করা হয়েছে তাতে রুপপুর পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন বা পদ্মা নদী থেকে বালু উত্তোলন হার্ডিঞ্জ ব্রিজের জন্য হুমকী হবে না। এজন্য নদীর গতি প্রকৃতিও নীরিক্ষা করে দেখা হচ্ছে।
হার্ডিঞ্জ ব্রিজের শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষ্যে ব্রিজের বর্তমান অবস্থা দেখতে গতকাল রোববার দুপুরে ব্রিজ পরিদর্শনে যান বুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. জামিলুর রেজা চৌধুরীর নেতৃত্বে জাপান, স্পেন, হাঙ্গেরীর উচ্চ পর্যায়ের ৯ জন বিদেশী প্রকৌশলী সহ বুয়েট ও রেলওয়ের আরও ৪০ জন প্রকৌশলী। এদিন দুপুরে তারা একটি বিশেষ ট্রেনে পাকশী রেলস্টেশনে পৌঁছান। এরপর তারা রেলওয়ের রেস্টহাউজে বিদেশী প্রকৌশলী ও সাংবাদিকদের সাথে হার্ডিঞ্জ ব্রিজের অতীত-বর্তমান অবস্থা নিয়ে মতবিনিময় করেন। এ সময় বক্তব্য দেন, বুয়েটের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. জামিরুল রেজা চৌধুরী, প্রকৌশলী ড. অমিতাভ ঘোষাল, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক আমজাদ হোসেন, রেলওয়ের প্রধান প্রকৌশলী (চীফ ইঞ্জিনিয়ার) মাহবুবুল হক বকশী, বুয়েটের প্রকৌশলী ড. সাইফুল আমিন, ড. আজাদুর রহমান, ড. হাসিব মোহাম্মদ হাসান, ড. প্রভীন আনোয়ার, আব্দুর রউফ প্রমুখ। পরে তারা হার্ডিঞ্জ ব্রিজ পরিদর্শন করেন।


Spread the love