রাজবাড়ীতে বাস-মাহেন্দ্র মুখোমুখি সংঘর্ষে মা-মেয়েসহ নিহত পাঁচ

27
Spread the love

রাজবাড়ী প্রতিনিধি : রাজবাড়ীর সদর উপজেলার ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের খানখানাপুর এলাকায় বাস ও মাহেন্দ্রের মুখোমুখি সংঘর্ষে মা মেয়েসহ পাঁচ যাত্রী নিহত হয়েছে। রোববার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহত হয়েছে আরো দুই যাত্রী। নিহত ও আহত সবাই মাহেন্দ্রের যাত্রী।
নিহতরা হলেন রাজবাড়ী সদর উপজেলার আহলাদীপুর গ্রামের নায়েব আলীর স্ত্রী রশিদা বেগম (৪০) ও তার মেয়ে তাসলিমা খাতুন (১৫)। ফরিদপুর জেলার ঝিলটুনি এলকার আব্দুল রফিকের ছেলে রিফাত হোসেন (২৩)। গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের আরশাদ শেখের ছেলে মোস্তফা শেখ (৪৫)। রাজবাড়ী গোয়ালন্দ উপজেলার ছোটভাকলা ইউনিয়নের জয়নাল শেখের আনোয়ার হোসেন (৪৫)।
দুর্ঘটনা ঘটার সাথে সাথে আহলাদীপুর হাইওয়ে থানার পুলিশ ও রাজবাড়ী ফায়ার সার্ভিসের একটি দল উদ্ধার অভিযান চালায়। মাহেদ্রে থাকা আহত দুই যাত্রীকে প্রথমে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। গ্রীন লাইন পরিবহনের বাসটি পুলিশ আটক করেছে। তবে বাসের চালক ও সহকারি পলাতক রয়েছে।
মাহেন্দ্রতে থাকা ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী উপজেলার কালিপদ শীল বলেন, আমাদের মাহেদ্র সঠিক স্থানেই ছিল। ওভার টেক করতে গিয়ে গ্রীন লাইনের বাসটি মাহেদ্রটিকে সামনে থেকে ধাক্কা দেয়। আমাদের মাহেদ্রটি রাস্তার নিচে পড়ে যায়। এসময় মাহেদ্রে থাকা পাঁচ জন মারা যায়। ঘটনা ক্রমে আমি বেঁচে যায়।
আহলাদিপুর হাইওয়ে থানার পুলিশ পরিদর্শক মোঃ মাসুদ পারভেজ বেনাপোল থেকে ছেড়ে আসা একটি যাত্রীবাহী গ্রিনলাইন (ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-০৬৮৬) পরিবহন ঢাকা উদ্দেশ্যে ছেড়ে এসে খানখানাপুর এলকায় পৌছালে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া থেকে ছেড়ে আসা একটি যাত্রীবাহী মাহেন্দ্রের মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই মাহেন্দ্রের পাঁচ যাত্রী নিহত হয়। নিহতের মধ্যে দুই জন নারী যাত্রী রয়েছে। ঘাতক বাসটিকে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা পরিষদের সামনে থেকে আটক করা হয়। নিহতদের মরদেহ রাজবাড়ীর সদর উপজেরার আহলাদীপুর হাইওয়ে থানায় রাখা হয়েছে।


Spread the love