বিশ্বনাথে কৃষি জমির মাটি ইটভাটায় : ট্রাক ও এক্সকাভেটর জব্দ

49
বিশ্বনাথ প্রতিনিধি :: সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলায় বেআইনি ভাবে ফসলি জমির মাটি কেটে ইটভাটায় তৈরি করা হচ্ছে ইট। ফসলি জমির মাটি দিয়ে ইট তৈরি সরকার কর্তৃক নিষিদ্ধ হলেও ভাটা মালিকরা এর কোন তোয়াক্কাই করছেন না। আর এ কারণেই সাবাড় হচ্ছে কৃষি জমির মাটি। এতে জমির উর্বরতা শক্তি কমে গিয়ে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে কম ফসল উৎপাদনের। প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে ‘মাটিখেকো’ মুনাফা লোভীদের কাজে লাগিয়ে ভাটা মালিকেরা ‘ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন’ ভঙ্গ করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এমনিভাবে আইন অমান্য করে ফসলি জমির মাটি কেটে ইটভাটায় নেয়ার সময় দু’টি ট্রাক ও একটি এক্সকাভেটর (মাটি কাটার যন্ত্র) জব্দ করেছে উপজেলা প্রশাসন। গত মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার কালিগঞ্জের দতা এলাকায় অভিযান চালিয়ে এগুলো জব্দ করা হয়।
সূত্র জানায়, দতা গ্রামের লাইলী বেগম তার মায়ের নামে থাকা জমি থেকে স্থানীয় ‘আল-আমীন’ ইটভাটায় মাটি বিক্রি করেন। ইটভাটার হয়ে তার কাছ থেকে মাটি ক্রয় করেন একই গ্রামের দিলোয়ার।
কথা হয় দতা গ্রামের কৃষি জমি থেকে মাটি বিক্রেতা মো. তুরাব আলীর মেয়ে লাইলী বেগমের সাথে। এ সময় মেশিনে মাটি কেটে স্থানীয় ‘আল-আমিন’ ইটভটার দু’টি ট্রাক বোঝাই করা হচ্ছিল। তিনি জানান, চুক্তিতে আমি আমার মায়ের জমি থেকে মাটি বিক্রি করছি। এখানে বোরো ফসল ও মৎস্য খামার করার ইচ্ছে আছে।
মাটি ক্রেতা দতা গ্রামের দিলোয়ার জানান, চুক্তিতে লাইলী বেগমের কাছ থেকে আমি মাটি কিনেছি। এভাবে কৃষকদের কাছ থেকে কিনে বিভিন্ন ইটভাটায় বিক্রি করে থাকি। ওই মাটি ‘আল-আমিন’’ ইভাটায় বিক্রি করেছি।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. কামরুজ্জামান সাংবাদিকদের বলেন, অভিযানে দু’টি ট্রাক ও একটি এক্সকাভেটর জব্দ করা হয়েছে। এ বিষয়ে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।