করোনায় খাদ্যের যেন অভাব না হয়: প্রধানমন্ত্রী

6

অনলাইন ডেস্ক : আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, করোনাভাইরাস আমাদের অনেকটা পিছিয়ে দিচ্ছে। কিন্তু এরমধ্যেও আমাদের কৃষিখাতে যে অগ্রগতি, এটা আমাদের ধরে রাখতে হবে। মানুষের আর যাই হোক, খাদ্যের যেন অভাব না হয়, সেটা দেখতে হবে।
মঙ্গলবার (২৮ জুলাই) নতুন অর্থবছরের চতুর্থ জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় তিনি এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা যেমন সারের দাম কমিয়েছি, উন্নতমানের বীজ দিচ্ছি এবং অন্যান্য উপকরণ দিচ্ছি। প্রায় দুই কোটির মতো কৃষক কৃষি উপকরণ সহায়তা কার্ড পায়, কৃষকরা ১০ টাকায় ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলতে পারে। এভাবে আমরা সব ধরনের সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছি যেন খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত থাকে।
এ ছাড়া নির্ধারিত সময়ে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) পূরণেও সংশ্লিষ্ট সবাইকে নিজ নিজ দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।
তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য থাকবে এসডিজিও আমরা অর্জন করব। বিশেষ করে এসডিজির যে ১৭টি দিক-নির্দেশনা আছে, যে কয়টা আমাদের দেশের জন্য প্রযোজ্য, আমাদের সব বিষয় নিয়ে নাড়াচাড়া করার দরকার নেই, ঠিক যে কয়টা আমাদের দেশের জন্য প্রযোজ্য, সেগুলো কিন্তু আমরা আমাদের যে অষ্টম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা, সে পরিকল্পনায় আমরা সংযুক্ত করে নিয়েছি। সেটা বাস্তবায়নের কাজ আমরা এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি।
এদিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্থানীয় সরকারকে আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়ারও বার্তা দিয়েছেন।
সভা শেষে অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আমাদের চিন্তা করতে হবে, স্থানীয় সরকারগুলো যেন ক্রমান্বয়ে স্বাবলম্বী হতে পারে। নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারে। আজকে এই টাকা দিতে প্রধানমন্ত্রী রাজি হয়েছেন যে, আমরা রাজস্ব থেকে দেব। কিন্তু এই টাকা ধীরে ধীরে কমাব। দীর্ঘদিন দিতে পারব না। এটা আপনাদের ম্যানেজ করতে হবে। স্থানীয় সরকারকে নিজেদের স্বাবলম্বী হতে হবে। এই হলো মূল বার্তা প্রধানমন্ত্রীর।